মেনু নির্বাচন করুন

দেবোত্তর ডিগ্রী কলেজ

  • সংক্ষিপ্ত বর্ণনা
  • প্রতিষ্ঠাকাল
  • ইতিহাস
  • প্রধান শিক্ষক/ অধ্যক্ষ
  • অন্যান্য শিক্ষকদের তালিকা
  • ছাত্র-ছাত্রীর সংখ্যা (শ্রেণীভিত্তিক)
  • পাশের হার
  • বর্তমান পরিচালনা কমিটির তথ্য
  • বিগত ৫ বছরের সমাপনী/পাবলিক পরীক্ষার ফলাফল
  • শিক্ষাবৃত্ত তথ্যসমুহ
  • অর্জন
  • ভবিষৎ পরিকল্পনা
  • ফটোগ্যালারী
  • যোগাযোগ
  • মেধাবী ছাত্রবৃন্দ

দেবোত্তর ডিগ্রী কলেজটি পাবনা জেলার আটঘরিয়া উপজেলা সদরে অবস্থিত। এটি পাবনা-ঈশ্বরদী মহাসড়কের টেবুনিয়া নামক জায়গা থেকে টেবুনিয়া-চাটমোহর সড়কের দেবোত্তর নামক স্থানে উপজেলা পরিষদ সংলগ্ন । কলেজটি ১৯৯৫ইং খ্রিষ্টাব্দে প্রতিষ্ঠিত হয় &এবং ০১জানুয়ারী/৯৬ তারিখে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড, রাজশাহী কর্তৃক একাডেমিক স্বীকৃতি লাভ করে। কলেজটির একাডেমিক স্বীকৃতি লাভের সময় পর্যন্ত আটঘরিয়া উপজেলায় উচ্চ শিক্ষা গ্রহনের মত কোন ডিগ্রী পর্যায়ের কলেজ ছিল না। তাই অত্র এলাকার সমাজ সেবক ও শিক্ষানুরাগী ব্যক্তি-বর্গ চিন্তা করেন যে, এই কলেজটি ডিগ্রী কলেজ পর্যায়ে উন্নীত করা দরকার। যাতে এলাকার গরীব মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীরা বাড়ীতে থেকে স্বল্প খরচে উচ্চ শিক্ষা গ্রহন করতে পারে। ফলে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে আবেদনের প্রেক্ষিতে ১৯৯৯-২০০০ইং শিক্ষাবর্ষ হতে আটঘরিয়া উপজেলার প্রথম ডিগ্রী কলেজ হিসাবে স্নাতক (পাশ) কোর্সের অধিভূক্তি লাভ করে। অত:পর পর্যায়ক্রমে ধাপে ধাপে কলেজটি উন্নতির দিকে অগ্রসর হয়। বর্তমানে কলেজটিতে সমাজ বিজ্ঞান এবং ব্যবস্থাপনা বিষয়ে (সম্মান) কোর্স চালু আছে। দেশে বৃত্তিমূলক শিক্ষার প্রসার ও কারিগরি শিক্ষায় জাতিকে শিক্ষিত করে তোলার লক্ষ্যে ২০০২-২০০৩ইং শিক্ষাবর্ষ হতে বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের অধীনে এইচ,এস,সি (বি,এম) কোর্সের অধিভূক্তি লাভ করা হয়। দীর্ঘ পথ পরিক্রমায় অনেক চড়াই-উৎরাই পারি দিয়ে কলেজটি আজ স্ব-মহিমায় মহিমান্বিত। আটঘরিয়া ছোট একটি উপজেলা। এ উপজেলার শিক্ষার হার অন্যান্য উপজেলার চেয়ে কম, মাত্র ৫২%। বেশ কিছু শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থাকলেও অত্র কলেজে ছাত্র-ছাত্রীর সংখ্যাধিক্যতা রয়েছে। মোট ছাত্র-ছাত্রীর সংখ্যা ৮০৮ জন। পাবলিক পরীক্ষার ফলাফলও সন্তোষজনক। স্থানীয় উদ্যোগে ও কলেজ কর্তৃপক্ষের নিজস্ব অর্থায়নে আন্তরিক প্রচেষ্টায় অত্র কলেজে ৮০×৩০ ফুট একটি দ্বিতল ভবন ও ১৫০×২৪ ফুট আধাপাকা টিনের ঘর এবং ৪৭×২৭ ফুটএকটি দর্শনীয় গ্রন্থাগার নির্মাণ করা হয়েছে। তার পরও অনেক প্রতিকুলতার মধ্য দিয়ে কলেজটি সুন্দর, সুষ্ঠভাবে পরিচালিত হয়ে আসছে। এখনও ছাত্র-ছাত্রীদের চাহিদার তুলনায় শ্রেণীকক্ষের স্বল্পতা, লাগসই কম্পিউটার ল্যাব, ব্যবহারিক পরীক্ষার জন্য বিজ্ঞানাগার ছাত্র-ছাত্রীদের কমনরুমের অপর্যাপ্ততা রয়েছে। কর্তৃপক্ষের নির্দেশনায় শিক্ষকদের আন্তরিক প্রচেষ্টায় অনেক প্রতিকুলতার পর আশানুরুপ ফলাফল অর্জনে কলেজটি সক্ষম হচ্ছে।

ছবি নাম মোবাইল ইমেইল
মোঃ সাইদুর রহমান 0 saidurrahman67@yahoo.com

ছবি নাম মোবাইল ইমেইল

শ্রেনী

মোট ছাত্র/ছাত্রী

ছাত্রীর সংখ্যা

মন্তব্য

একাদশ

১৭০

৮০

 

দ্বাদশ

১৮৮

১১২

 

স্নাতক ১ম বর্ষ

১৪৮

৮৫

 

স্নাতক ২য় বর্ষ

৫৮

৪০

 

স্নাতক ৩য় বর্ষ

৪৩

৩৩

 

স্নাতক (সম্মান) ১ম বর্ষ সমাজ বিজ্ঞান

৭৭

৪৫

 

স্নাতক (সম্মান) ২য় বর্ষ সমাজ বিজ্ঞান

০৯

০৫

 

স্নাতক (সম্মান) ১ম বর্ষ ব্যবস্থাপনা

২০

০৫

 

এইচ.এস.সি (বি.এম) ১ম বর্ষ

৪৬

২৪

 

এইচ.এস.সি (বি.এম) ২য় বর্ষ

৫৮

২৩

 

1050

৮২:৭৩

ম্যানেজিং কমিটির

সদস্যের তালিকা

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

ক্র:নং

নাম

কমিটিতে অবন্থান

 মোবাইল নং

   

মো: আব্দুল কুদ্দুস মোল্লা

সদস্য

 

মো: মোজাফ্ফর হোসাইন

সদস্য

 

মো: সুলতান মাহমুদ

সদস্য

 

মো: আছিম উদ্দিন

সদস্য

 

মো: হাবিবুল্লাহ খান

সদস্য

 

মো: আব্দুল হক

সদস্য

 

নিহার আফরনাজ

সদস্য

 

মো: আব্দুল হামিদ

সদস্য

 

১০

মো: শামছুল আলম

সদস্য

 

১১

মো: মোশারফ হোসাইন

সদস্য

 

১২

মো: এন্তাজ আলী

সদস্য

 

১৩

মো: সাইদুর রহমান

সদস্য সচিব

০১৭১২৫৩৫৯৩৩

 

পরীক্ষার নাম

পাশের বছর

অংশ গ্রহনকারী ছাত্র/ছাত্রীর সংখ্যা

মোট পাশ

পাশের হার

এইচ.এস.সি

২০১৪

১৬৪

১৩০

৭৯%

এইচ.এস.সি

২০১৩

১৪৭

১১৭

৮০%

এইচ.এস.সি

২০১২

১৭২

১৪৫

৮৪%

এইচ.এস.সি

২০১১

১৩৯

১১৫

৮৩%

এইচ.এস.সি

২০১০

১২৯

৯৫

৭৪%

এইচ.এস.সি (বি.এম)

২০১৪

৬৩

৪৯

৭৮%

এইচ.এস.সি (বি.এম)

২০১৩

৩৪

২৭

৭৯%

এইচ.এস.সি (বি.এম)

২০১২

৪৭

৫৩

৮৯%

এইচ.এস.সি (বি.এম)

২০১১

৪৫

৩৫

৭৮%

এইচ.এস.সি (বি.এম)

২০১০

৫২

৩৭

৭১%

স্নাতক(পাশ)

২০১১

৬১

৫১

৮৪%

স্নাতক(পাশ)

২০১০

৩৩

২২

৬৭%

স্নাতক(পাশ)

২০০৯

৪০

২৪

৬০%

স্নাতক(পাশ)

২০০৮

২১

১১

৫২%

শতভাগ পাশ করণ।



Share with :

Facebook Twitter